ফিচার

জামালপুরে অবহেলিত শিশুদের বিকশিত করার লক্ষ্যে হারুন হাবীবের নন্দন সৃষ্টি

নরসুন্দা ডটকম   May 6, 2018
অবহেলিত শিশু

অনাদর অবহেলায় পড়ে থাকা একগুচ্ছ ফুলের মতো শিশুদের বিকশিত করার লক্ষ্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা সেক্টর কমান্ডার ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ’ ৭১ এর মহাসচিব হারুন হাবীব গড়ে তুলেছেন নন্দন একাডেমি। দুই বছর পূর্বে তিনি গড়ে তোলেন অক্ষর বিদ্যানিকেতন। ৫ মে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার খড়মা নয়াপাড়ায় হারুন হাবীবের নিজ বাড়িতে গড়ে উঠা নন্দন একাডেমি উদ্বোধন করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা।

নন্দন একাডেমির সভাপতি ও অক্ষর বিদ্যানিকেতনের অধ্যক্ষ নূর উন নেছা শাহীনের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উদীচী কেন্দ্রিয় কমিটির সহসভাপতি জামালপুর ভাষা ও মুক্তিসংগ্রাম গবেষণা কেন্দ্রের আহ্বায়ক মুক্তিযোদ্ধা আলী ইমাম দুলাল, উন্নয়ন সংঘের মানবসম্পদ বিভাগের পরিচালক বাংলারচিঠি ডটকম এর সম্পাদক জাহাঙ্গীর সেলিম প্রমুখ।

কেক কেটে নন্দন একাডেমি উদ্বোধনী ঘোষণার পর একাডেমির সাধারণ সম্পাদক নবীন নৃত্যশিল্পী জিহাদ সরকার রাজের পরিচালনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। শিশুশিল্পীদের পরিবেশনায় সঙ্গীত ও নৃত্য পরিবেশনা দেখে অতিথিবৃন্দ বিস্ময় প্রকাশ করেন। অনেকেই মন্তব্য করেন শুরুতেই এই কুঁড়িদের অভাবনীয় পারফরমেন্স আগামীদিনের জন্য শুভ ইঙ্গিত বহন করছে।

সাংবাদিক জাহাঙ্গীর সেলিম বলেন, জামালপুর জেলার সবচেয়ে দূরবর্তী উপজেলার সুন্দর একটি গ্রামে শিশুদের কল্যাণে গড়ে উঠা নন্দন একাডেমি একদিন মানুষ গড়ার কারিগর হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করবে। তিনি হারুন হাবীবের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, তাঁর প্রতিটি গবেষণালব্ধ লেখা বিশেষ করে মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক প্রকাশনাগুলো দেশের অমূল্য সম্পদ। হারুন হাবীবের স্পর্শে একদিন নন্দন একাডেমি শান্তি নিকেতনের মতো ঐতিহাসিক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হবে।

উল্লেখ,অক্ষর বিদ্যানিকেতনে বর্তমানে সুবিধাবঞ্চিত শতাধিক শিশু বিনামূল্যে অধ্যয়ন করছে। এই শিশুরা গত ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে বিভিন্ন নৈপুন্য প্রদর্শন করে শ্রেষ্ঠত্বের পুরস্কার লাভ করে। সাতজন শিক্ষক আধুনিকমানের শিক্ষাদানে নিরন্তর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

About the author

নরসুন্দা ডটকম